রাজ্য ও কলকাতা পুলিশকর্মীদের করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ২০০০ ছাড়াল

রাজ্য ও কলকাতা পুলিশকর্মীদের করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ২০০০ ছাড়াল
আজবাংলা    12ে করোনার জন্য যে ভাবে লাফিয়ে বেড়েই চলেছে সংক্রমন তাতে পুলিশবাহিনীর একাংশ ধাক্কা খাচ্ছে নিয়মিত।এমন মারণ ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়তে গিয়ে যাদের সামনে থেকে প্রতিদিন লড়াই করতে হচ্ছে, সেই পুলিশবাহিনীতেই যে ভাবে সংক্রমণের হার বেড়ে চলেছে, তাতে অনেকের মনবল অনেকটাই কমে গেছে, তাতে কোন সন্দেহ নেই। গত মার্চ থেকে প্রায় চার মাস ধরে করোনা মোকাবিলায় লকডাউনের মধ্যে ব্যস্ত পুলিশ। প্রথম ৭০ দিনে পুলিশ বাহিনীতে করোনা আক্রান্তের হার ছিল অনেক কম। জুন থেকে শুরু হয়েছে আনলক। সব কিছুর খোলার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বেড়েছে অপরাধের হারও। করোনার সাথে মোকাবিলা করে এবং অন্যান্য ডিউটি সামাল দিতে গিয়ে নাভিশ্বাস উঠেছে পুলিশবাহিনীর। এই মঙ্গলবারই কলকাতা পুলিশে ৪২ জনের শরীরে করোনা ধরা পড়েছে। সব মিলিয়ে আক্রান্তের সংখ্যা ১১০০ ছুঁইছুঁই কলকাতা পুলিশে। শোচনীয়ও অবস্থায় আছে ব্যারাকপুর ও বিধাননগরের মতো কমিশনারেটের অন্তর্গত থানাগুলি। এখনও পর্যন্ত, 12ে ও কলকাতা পুলিশে সব মিলিয়ে দু'হাজারের বেশি পুলিশকর্মী। এছাড়া 12 পুলিশের একাধিক সিনিয়র আইপিএস ও বিধাননগরের একজন আইপিএস ও আসানসোলের পুলিশ কমিশনার, করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। এরই মধ্যে চারু মার্কেটের থানার কনস্টেবল দেবেন্দ্রনাথ তিরকি (৫৯) করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গিয়েছেন। ১৯ জুলাই তাঁর দেহে করোনা ধরা পড়ে। তিনি রাজারহাটে ভর্তি ছিলেন। পরে ক্রমশ অবস্থার অবনতি হওয়ায় কারনে গত রবিবার সাগর দত্ত মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।এই চারু মার্কেট থানাতেই করোনা আক্রান্ত হয়েছেন আরও ১১ জন। বড়বাজারের ৬ জন, শ্যামপুকুরের ১১ জন, যাদবপুরে ১১ জন,  কসবায় ২৫ জন, বউবাজারের ৯ জন ও রবীন্দ্র সরোবরের ১২ জন পুলিশকর্মী করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। এছাড়া টালা থানায় ওসি ও অতিরিক্ত ওসি দু'জনই প্রায় একই সঙ্গে করোনা আক্রান্ত হওয়ার জন্য চিৎপুর থানার ওসিকে ওই থানার বাড়তি দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।এ নিয়ে কলকাতা পুলিশের ছ'জন কর্মী ও অফিসার করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গিয়েছেন। আবার এরই মধ্যে অনেকে সুস্থ হয়ে উঠলেও নিত্যদিন যে ভাবে নতুন করে পুলিশকর্মীরা আক্রান্ত হচ্ছেন এবং এরই মধ্যে তাদের সংস্পর্শে আসা অন্য পুলিশকর্মীদের ১৪ দিনের কোয়ারান্টিনে যেতে হচ্ছে। এত সবকিছুর মধ্যেও সবদিক থেকে আটকানো যে যথেষ্ট কঠিন হয়ে পরছে।