বর্ষাকাল শেষ হতে চললো, এইবছর বাঙালির ঘরে কি ইলিশ ঢুকবে?

বর্ষাকাল শেষ হতে চললো, এইবছর বাঙালির ঘরে কি ইলিশ ঢুকবে?
আজ বাংলা   ইলিশ, বাঙালির সব চেয়ে জনপ্রিয় মাছ। যার নাম শুনলেই  জিভে জল আটকানো কঠিন হয়ে যায়, যেটার জন্য বাঙালিরা সারা বছর অপেক্ষা করে থাকে, সেই মাছটি এই মাসে বাজারে ও খাবারের থালায় দর্শন পাওয়া যাচ্ছে না। শুধু মাছের দাম কমতি বা অভাব সেটা নয়, তার থেকেও দুঃখজনক ব্যাপার হচ্ছে মাছ রাঁধার মৌলিক উপাদান গুলোরও মাথা ছোঁয়া দাম।গাঁটবন্দী এক কেজি সর্ষের তেলের দাম চলছে ১৩০-১৪০ টাকা ও সবুজ লঙ্কার দাম যাচ্ছে ২৫০ টাকা প্রতি কেজি, আদার দাম ও ১৮০ প্রতি কেজি ছুঁয়ে গেছে। "লকডাউনের মধ্যে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে, নিষিদ্ধ ডিজেলের দামের কারণে এই সঙ্কটের দিন দেখতে হচ্ছে। গভীর জলে জেলেদের রীতিমতো ইলিশদের পেছনে পশ্চাদ্ধাবন করতে হচ্ছে ধরার জন্য কিন্তু ডিজেলের দাম তাদেরকে প্রতিরোধ করছে বেশি মাছ ধরার থেকে", জানালেন বিজন মাইটি, পশ্চিমবঙ্গ মৎস্যজীবী সমিতির সম্পাদক। পরিবহন সমস্যার জন্য সব জায়গায় ইলিশ সরবরাহ দেওয়া যাচ্ছ না। "যদি মাছ ভালো উঠে তাহলে সেগুলো শহরের বাজারে পরিবহন করা যাচ্ছে না আর যদি মাছ কম উঠে তাহলে সেটা কাছাকাছি স্থানীয় বাজারে বিক্রি করে দেওয়াটাই লাভজনক", জানালো গৌরাঙ্গ বসাক, ডায়মন্ড হারবারে একজন মৎস্য বন্দরে 11য়ী। এই বর্ষাকালে বর্ষণের মাঝে শহরের বাজারে ইলিশের টিকি দেখা যাচ্ছে না। ছোট ইলিশ বা খোকা ইলিশ ধরা নিষিদ্ধ করার পরেও সেগুলো প্রিমিয়াম বা উচ্চ দামে বিক্রি হচ্ছে।